মৌলভীবাজারে শাবল দিয়ে পিতাকে হত্যা, পুত্র আটক


ডেস্ক রিপোর্ট : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে শাবল দিয়ে পিতা আব্দুল গফুর (৫৮)কে হত্যার ঘটনায় ঘাতক পুত্র জহিরুল ইসলাম (২৮)কে আটক করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ।

বুধবার (১ জুন) উপজেলার শমসেরনগর ইউনিয়নের ডবলছড়া সীমান্ত এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

কমলগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) পবিত্র শেখর দাস জানান, জহিরুল ইসলাম ডবলছড়া সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে ডবলছড়া বাগানের বাজার এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক হওয়া জহিরুলের বিরুদ্ধে তার পিতাকে হত্যার মামলা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত রোববার উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের কেওয়ালীঘাট গ্রামে রাতে মা বাবার সাথে ঝগড়া হয় ছেলে জহিরুলের এক পর্যায়ে ক্ষুব্ধ জহির ঘরে থাকা শাবল দিয়ে বাবা গফুরের মাথা ও শরীরে আঘাত করে। এ সময় তার মা আছাতুন নেছা স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তাকেও গুরুতর আঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে বাড়ির লোকজন আহতদের উদ্ধার করে রাত ১ টায় কমলগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা প্রদান করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন। হাসপাতালে নেওয়ার পথে আব্দুল গফুরের মৃত্যু হয়। আহত মা আছাতুন নেছাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার পরদিন ৩০ মে নিহতের বড় মেয়ে মরিয়ম বেগম বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার পর থেকে পুলিশ তাকে হন্যে হয়ে খোঁজছিল। তাকে ধরতে বিভিন্ন সীমান্তে নজর রাখা হচ্ছিল। সোর্সের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতেই তার সন্ধান মেলে। ডাবলছড়া সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় ওঁৎ পেতে থাকা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার।