বিচার চাইতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার নারী


ডেস্ক রিপোর্ট : ঢাকার আশুলিয়ায় একটি প্রতিষ্ঠানে নারী সহকর্মীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর ভুক্তভোগী ওই নারী নিজে বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে এ ঘটনায় ওই কোম্পানির কর্মকর্তা ও নিরাপত্তাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার বুড়ির বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- নিরাপত্তাকর্মী মো. ফেরদৌস খন্দকার (৩৮) ও নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. মাসুদ আবেদীন (৩০)।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই নারী একটি কোম্পানির অধীনে ডিইপিজেডের মধ্যে একটি প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি বুড়িরবাজার এলাকায় ওই কোম্পানির মেসে অন্যান্য নারী সহকর্মীদের সঙ্গে থাকতেন। তার পাশের বাসার নিচতলায় থাকতেন একই প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তাকর্মী ও কর্মকর্তারা।

গত বৃহস্পতিবার ভুক্তভোগীর সঙ্গে তার মেসের অন্য এক নারী নিরাপত্তাকর্মীর ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে ওই নারী ভুক্তভোগীর মোবাইলটি ভেঙে ফেলে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী কোম্পানির কর্মকর্তার কাছে বিচার দেন। শুক্রবার রাতে ওই বাসায় বিচার ডাকে তারা। এ সময় তারা অন্যান্য সহকর্মীকে নিয়ে ওই ভাড়া বাসায় উপস্থিত থাকতে বলেন।

তাদের কথা অনুযায়ী ভুক্তভোগী শুক্রবার রাতে সেই বাসায় যান। এ সময় ওই কারখানার নিরাপত্তা কর্মী ও কর্মকর্তা মোবাইল ভাঙা নিয়ে চলমান বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। বিচার শেষে ভুক্তভোগী ওই নারীকে বাদে বাকিদের চলে যেতে বলেন। এ সময় তারা দরজা আটকে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে অভিযুক্তরা। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী অসুস্থ অবস্থায় স্থানীয় হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন। পরে শুক্রবার তাদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের মামলা করেন।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আব্দুর রাশিদ বলেন, পুলিশ অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেফতার করেছে। শনিবার তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।