পরীমনির বিয়ের বৈধতা জানতে চেয়ে আইনি নোটিশ


বিনোদন ডেস্ক : ঢালিউডের চিত্রনায়িকা পরীমনির সঙ্গে অভিনেতা শরীফুল রাজের বিয়ের বৈধতার প্রমাণ চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন এক আইনজীবী। তার নাম জয়নাল আবেদীন মাযহারী। তিনি কুমিল্লার অধিবাসী।

সাত কর্মদিবসের মধ্যে নোটিশের জবাব না পেলে পরীমনি ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণাও দেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জয়নাল আবেদীন মাযহারী।

লিগ্যাল নোটিশে তিনি বলেছেন, আপনি (পরীমনি) ২০১২ সালের ২৮ এপ্রিল ১ লাখ টাকা দেনমোহরে যশোরের কেশবপুর থানার ফেরদৌস কবির সৌরভকে প্রথম বিয়ে করেন। গত ২২ জানুয়ারি গণমাধ্যম থেকে জানতে পারি, আপনি সন্তানসম্ভবা। আপনি বলেছেন, ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর শরীফুল রাজের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী হওয়ায় আপনার অনেক ফলোয়ার রয়েছে। আপনার এমন কর্মকাণ্ডে সমাজে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করি।

তিনি আরও বলেন, প্রচলিত আইন ও ধর্মীয় আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আপনি আগামী সাত দিনের মধ্যে সৌরভের সঙ্গে তালাক কবে কোথায় হয়েছে, তা জনসমক্ষে প্রকাশ করবেন। শরীফুল রাজের সঙ্গে বিয়ের কাবিনের নকল সংযুক্ত করে নোটিশের জবাব দেবেন। অন্যথায় আমি আপনার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবো।

আইনজীবী জয়নাল আবদীন মাযহারী সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আমি শরীফুল রাজ ও পরীমনিকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছি। সাত কর্মদিবসে যদি তারা জবাব না দেয়, তাহলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবো।’

জানা যায়, গুনীন সিনেমার সেটেই পরীমনি-রাজের পরিণয় ঘটে। এরপর ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর বিয়ে করেন তারা। বিয়ের ৯৫ দিন পর গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান করেন তারা।

চিত্রনায়িকা পরীমনির চতুর্থ স্বামী শরীফুল রাজের আগে সৌরভ কবির, তামিম হাসান ও কামরুজ্জামানকে বিয়ে করেছিলেন। তবে ঢাকাই সিনেমার এই নায়িকা অতীত ভুলে আগামীর সম্ভাবনার দিকে যেতে দোয়া চান সকলের।

বিয়ের বিষয়ে এর আগে নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিম গণমাধ্যমকে জানান, ১০১ টাকা দেনমোহরে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হয়। বিয়েতে উকিল বাবার ভূমিকায় ছিলেন নির্মাতা রেদওয়ান রনি।

নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী জানান, এই বিয়ে আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। কারণ তারা আগেই বিয়ে করেছেন। শুধু দুই পরিবারের স্বজনদের পরিচয় আর নিজেদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা পালনের জন্যই এ আয়োজন।