সুনামগঞ্জে ৬ দিন ধরে দশম শ্রেণির ছাত্রী নিখোঁজ


নিজস্ব প্রতিবেদক : সুনামগঞ্জে নারী ও শিশু পাচারকারী চক্রের খপ্পরে পরে এক দশম শ্রেণির ছাত্রী ( এসএসসি পরীক্ষার্থী) নিখোঁজের ৬ দিন পেরিয়ে গেলেও প্রশাসনের নেই উদ্ধার তৎপরতা । যার ফলে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রীর পরিবারের মাঝে চলছে ভয় আর উৎকন্ঠা। 

এদিকে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী ঝিলিক উদ্ধার না হওয়ায় বারবার মুর্চা(জ্ঞান) হারাচ্ছেন তার মা বাবা। তাদের কান্নায় ভারি হয়ে আসছে আকাশ বাতাস। 

নিখোঁজ এসএসসি পরীক্ষার্থীর নাম লায়লা সোবহান ঝিলিক। সে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশগাও গ্রামের আব্দুস সোবহানের মেয়ে ও পলাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী। এ বিষয়ে নিখোঁজ লায়লা সোবহান ঝিলিকের চাচা আব্দুল মালেক বাদী হয়ে গত ২২ জুলাই শুক্রবার বিশ্বম্ভরপুর থানা একটি সাধারণ ডায়রী করেন। কিন্তু নিখোঁজের ৫ দিন পরও স্কুল ছাত্রী ঝিলিককে পুলিশ উদ্ধার করতে না পারায় পরিবারের লোকজনের মধ্যে চলছে ভয় আর উৎকন্ঠা চলছে কান্নার রুল। 

এদিকে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী ঝিলিককে উদ্ধারে পুলিশের পাশাপাশি গতকাল (২৫ জুলাই) সোমবার  বিকালে র‍্যাব-৯, সিপিসি-৩ (সুনামগঞ্জ) এ একটি লিখিত আবেদন করেন ঝিলিকের বড় ভাই কামাল হোসেন ।  

থানায় ডায়রী সূত্রে জানাযায়, গত (২১ জুলাই বৃহস্পতিবার) সকাল ৭ টায় ঝিলিক নিজ বাড়ি থেকে প্রাইভেট পড়তে মাঝাইড় গ্রামের আনুফা মাষ্টারে বাড়ির উদ্দেশ্যে বেরিয়ে যায়। কিন্তু প্রাইভেটের সময় অতিবাহিত হলেও ঝিলিক বাড়িতে না আসায় এ সময় তার পরিবারের লোকজনের প্রাইভেট শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান ঝিলিক প্রাইভেটে ন যায়নি।  

পরে ওই দিন ও রাত পর্যন্ত পরিবারের লোকজন ঝিলিকের আত্নীয় স্বজন সহ সম্ভাব্য সকল জায়গা খোজাখুজি করলো তার কোন সন্ধান পায়নি। খোজাখুজি পর জানতে পার তার পরিবারের লোকজন জানতে পারে  সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের লক্ষ্মণশ্রী গ্রামের সাজ্জাদুর রহমান সাঞ্জু মিয়ার মেয়ে নারী ও শিশু পাচারকারী চক্রের সদস্য সুমা আক্তার শাহজাদী(২০) এর খপ্পরে পরে নিখোঁজ হয় ঝিলিক।

এ সময় নারী ও শিশু পাচারকারী চক্রের সদস্য শাহজাদী ঝিলিককে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে সাথে  নিয়ে যায়।  পরে এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত( ২২ জুলাই শুক্রবার ) দুপুরে ঝিলিকের চাচা আব্দুল মালেক বাদী হয়ে সুমা আক্তার শাহজাদী নাম উল্লেখ করে বিশ্বম্ভরপুর থানা একটি সাধারণ ডায়রী করেন। কিন্তু সাধারণ ডায়রী করার পর ৬ দিন পেরিয়ে গেলেও বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশ ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার কর‍তে না পারায় ঝিলিকের পরিবার আছে ভয় আর উৎকন্ঠা মধ্যে। 

নিখোঁজ ছাত্রী ঝিলিকের মা রিনা বলেন, আমার নেয়ে একজন সহজ সরল মানুষ। শাহজাদী নামের একটা মেয়ে ঝিলিককে বিদেশ নেয়ের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে গেছে। কিন্তু পুলিশ তা জানার পরেও শাহজাদী ও তার মা বাবা কাউকেই আটক করেনি।  আমার মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশ-র‍্যাব সহ সকল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধতন কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এব্যাপারে থানায় করা সাধারণ ডায়রীর তদন্ত কর্মকর্তা এসআই অঞ্জন বলেন, নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী ঝিলিককে উদ্ধারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।